"/> অন্তর্জাল
কিউবা
ক্যাস্ট্রোর মৃত্যুতে বিশ্বনেতাদের প্রতিক্রিয়া এবং সমালোচনার শিকার জাস্টিন ট্রুডো
কাজী মামুন -11/27/2016





মি যদি বলি কানাডা চীনের চাইতে বেশি সমাজতান্ত্রিক, অনেকেই আমাকে পাগল ভাববেন। কিন্তু সমাজতন্ত্রের মূল উদ্দেশ্য থেকে যদি আপনি বিচার করেন, নাগরিকদের মৌলিক অধিকার, অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা, বাকস্বাধীনতা ইত্যাদি সকল নাগরিকের অধিকারের কথা যদি বিচার করেন, তাহলে দেখবেন নামে চীন সমাজতান্ত্রিক আর কানাডা পুঁজিবাদী রাষ্ট্র হলেও কানাডা আসলেই চীনের চাইতে বেশি সমাজতান্ত্রিক।
কানাডায় আপনি না খেয়ে মরবেন না, এ নিশ্চয়তা রাষ্ট্র দিচ্ছে। আপনি হাইস্কুল পর্যন্ত ফ্রি শিক্ষা পাবেন এই নিশ্চয়তা দিচ্ছে, দিচ্ছে ফ্রি চিকিৎসা, অল্প খরচের আবাসন, পুনর্বাসন এবং এর উপর আছে আপনার বাকস্বাধীনতা। যাই হোক এ লেখার উদ্দেশ্য পুঁজিবাদ-সমাজতন্ত্রের বিশ্লেষণ নয়, বরং ক্যাস্ট্রোর মৃত্যুতে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর প্রতিক্রিয়া এবং সেই প্রতিক্রিয়া নিয়ে তোলপাড় হওয়া নিয়ে।

ফিদেল ক্যাস্ট্রোর মৃত্যু নিয়ে জাস্টিন ট্রুডো যে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এটা নিয়ে কানাডা এবং সারাবিশ্বে তোলপাড় হচ্ছে, ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা হচ্ছে।

আমেরিকার হবু প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথমে টুইটারে “ফিদেল ক্যাস্ট্রো মারা গেছে” শুধু এটুকু প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছিল। এর কয়েক ঘণ্টা পর আরো বিস্তারিত অফিশিয়াল প্রতিক্রিয়ায় তিনি সরাসরি ক্যাস্ট্রোকে কিউবার দারিদ্র , ভোগান্তি, মানবিক অধিকার লঙ্ঘন ইত্যাদির জন্য দায়ী করেছেন । এদিক থেকে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ওবামা অনেকটাই কৌসুলি ভূমিকা নিয়েছেন, তিনি ক্যাস্ট্রো কী করেছেন এটা ইতিহাস বিচার করবে ঘোষণা দিয়ে, এই আবেজ্ঞহন সময়ের প্রতি ইংগিত করে কিউবান জনগণের প্রতি বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দেয়ার কথা বলেছেন।

চীন এবং রাশিয়া উভয়েই বুন্ধুত্বের কথা বলেছেন, দুঃখ প্রকাশ করেছেন, দুঃখ প্রকাশ করেছেন পোপ ফ্রান্সিসও। কিন্তু সবাইকে ছাড়িয়ে গিয়ে জাস্টিন ট্রুডো যা বলেছেন সেটা একমাত্র জাস্টিন ট্রুডোর পক্ষেই সম্ভব। এই নেতা শুধু মাত্র নিজের অবস্থান এবং কানাডার অবস্থানই স্পষ্ট করেননি, ক্যাস্ট্রোর ভালো কাজগুলোর কথা স্বরন করেছেন।

তিনি বলছেন-
“এটা অত্যন্ত দুঃখজনক যে কিউবার সবচেয়ে বেশি সময় নেতৃত্ব দেয়া প্রেসিডেন্ট আজ মৃত্যু বরণ করেছেন”

“ফিদেল ক্যাস্ট্রো আজীবন তাঁর জনগণের জন্য কাজ করছেন, প্রায় অর্ধ-শতাব্দী ধরে। একজন লিজেন্ডারি বিপ্লবী এবং বাগ্মী হিসেবে ক্যাস্ট্রো শিক্ষা ও চিকিৎসাখাঁতে অভাবনীয় উন্নতি করেছেন ঐ দ্বীপরাষ্ট্রের জন্য”

“বিতর্কিত ব্যক্তি হলেও ক্যাস্ট্রো’র সমর্থক ও বিরোধীরা কিউবার জনগণের প্রতি তাঁর অসাধারণ ডেডিকেশান এবং গভীর ভালোবাসার কথা স্বীকার করে”

“আমি জানি আমার বাবা (পিয়েরে ট্রুডো), গর্বভরেই তাঁকে বন্ধু হিসেবে পরিচয় দিত এবং আমার সুযোগ হয়েছিল আমার বাবার মৃত্যুর সময়ে তাঁর চাথে দেখা করার। তাঁর তিন ছেলে এবং ভাই রাউলের সাথে দেখা হওয়াটাও আমার জন্য অনেক সম্মানজনক ছিল”

“কানাডার পক্ষ থেকে আমি এবং সোফি (ফার্স্ট লেডি) গভীর সমবেদনা জানাই ক্যাস্ট্রোর পরিবার, বন্ধুবান্ধব এবং তাঁর অগণিত সমর্থকদের প্রতি। আমরা এই অবিসংবাদিত নেতার মৃত্যুতে কিউবার জনগণের শোকের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করছি”

যারা এখন জাস্টিন ট্রুডোর বক্তব্য নিয়ে সমালোচনা করছেন তাঁরা ঠিকই আবার আমেরিকা হতে চায় না, ফ্রি শিক্ষা- চিকিৎসা, অন্ন-বস্ত্র-বাসস্থানের মতো সমাজতান্ত্রিক সুযোগ-সুবিধা চান, যার অনেককিছুই জাস্টিন এর বাবা পিয়েরে ট্রুডো শুরু করে দিয়েছেন। সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র না হয়েও কানাডা সমাজতন্ত্রের কী কী আদর্শ ধারণ করে এটাই আজ জাস্টিন স্পষ্টভাবে বলেছেন ফিদেল ক্যাস্ট্রোর মৃত্যুতে প্রতিক্রিয়ায়।

যতই সমালোচনা হোক, সমাজতন্ত্র বা পুঁজিবাদ এর রাজনৈতিক সীমারেখার বাইরে এসে প্রকৃত অর্থে মানুষের অধিকারের প্রতি শ্রদ্ধা ব্যক্ত করার জন্য জাস্টিন ট্রুডোর প্রতি কৃতজ্ঞতা।

আমি নিজেকে ধন্য মনে করি এমন একজন নেতার জন্য কাজ করার সুযোগ পেয়েছি বলে।


 



কাজী মামুন
ভাইস প্রেসিডেন্ট, রিজাইনা ওয়াসকানা লিবারেল এসোসিয়েশান
সাস্কেচ্যুয়ান, কানাডা