"/> অন্তর্জাল
বাংলাদেশ, রামপাল, কয়লাবিদ্যুৎ
জাতীয় স্বার্থ ও মর্যাদার প্রাণভোমরা
ফারুক ওয়াসিফ -08/28/2016





বিএনপি পরিবেশ বিনাশী উন্মুক্ত কয়লা খনি করবার জন্য গুলি করে তিন তরুণকে হত্যা করেছিল। তারপর আবার সুন্দরবন রক্ষার কথা এক নির্বাচনী ম্যানিফেস্টোতেও রেখেছিল। ফুলবাড়ীতে প্রকৃতি ধ্বংস করতে চেয়েছিল বলে সুন্দরবনের ব্যাপারেও তারা একই কাজ করবে; এই কথা শতভাগ নিশ্চয়তা দিয়ে বলা যায় না। যেমন ভারতে গ্যাস রপ্তানি বিষয়ে আওয়ামী লীগ অতীতে নিরাপস থাকলেও এবার উল্টো ভূমিকায় নেমেছে। অন্যদিকে যে বিশেষজ্ঞ ও খয়ের খাঁ কুদ্ধিজীবীরা বাংলাদেশ গ্যাসের ওপর ভাসছে বলে বাকবাকুম করেছিল, তারাই এখন গ্যাস নাই বলে কয়লার ছাই দেশের মুখে মাখাতে ‍তৈললালা ঝরাচ্ছে।

সুতরাং রাজনীতি ও চেতনার খেলায় হিসাব বদল হয়। আর তখনই জাতীয় স্বার্থের হিসাব ঠিক রাখার জন্য সতর্ক থাকতে হয় সত্যিকার জাতীয় নেতৃত্বকে।

বিএনপি কেন, যে কারোরই সুন্দরবন রক্ষার ডাক দেবার অধিকার আছে। কিন্তু অতীতের অভিজ্ঞতা থেকে এবং দীর্ঘ নীরবতার পর হঠাৎ সরব হওয়ার ঘটনা থেকে বিএনপির অভিপ্রায় নিয়ে জাতীয় কমিটির সন্দেহ জাগা স্বাভাবিক। সুন্দরবন প্রশ্নে জাতীয় কমিটির আন্দোলনের শুরু রামপাল সাইট ঠিক করার সময় থেকেই। তাঁদের উদ্দেশ্যের আন্তরিকতা তাই আর প্রমাণ করতে হবে না; যা প্রমাণ করতে হবে বিএনপিকে।

কিন্তু স্পষ্টতই জনতার আন্দোলনের নিশানা ও নেতৃত্ব অবশ্যই বিএনপি বা আওযামী লীগের থেকে আলাদা রাখাই নিরাপদ। কারণ আমরা ঘরপোড়া গরু।

জাতীয় কমিটি বিপ্লব করতে আসেনি। বিপ্লবী হুংকারের বদলে যুক্তি ও নীতিই তাঁদের শক্তি। পাশাপাশি মনে রাখতে বলি, এই জাতীয় কমিটির নেতৃত্বে ২০০৬ সালে ফুলবাড়ীতে গণঅভ্যুত্থান হয়েছে, রক্তাক্ত প্রতিরোধ হয়েছে। জনগণের শক্তির ভরসা করেই তাঁরা সময়োপযোগী কর্মসুচি দেবেন।

শাসনের দুৃটি তরিকা আছে: ডমিন্যান্স বা আধিপত্য এবং হেজিমনি বা রাজিকরণ। জাতীয় কমিটির দাবির হেজিমনি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। অর্থাৎ তাঁদের বক্তব্যে অধিকাংশ মানুষ রাজি অবস্থায় আছেন, সমর্থনে তৈরি আছেন।

সরকার জনগণের নারাজিকে রাজি করাতে পারছে না যখন, তখন হুমকি ও আধিপত্যই হবে তাদের পথ। এ করতে গিয়ে তাদের রাজনৈতিক ও নৈতিক পরাজয়ই ঘটতে দেখা গেল গতকালের সংবাদ সম্মেলনে। একজন বাদে সকল সাংবাদিকেরা বলে আসলেন, ‘তোমারি ক্ষমতা আমি, যা করার করো গো তুমি’।

সরকার এখন শক্তির প্রতিযোগিতায় ঠেলে দিতে পারে আন্দোলনকে। যেমন প্রতিবাদ করায় আজকেও রাজশাহীতে জাতীয় কমিটিভুক্ত এক ছাত্রনেতা গ্রেফতার হয়েছেন। সামনে আরো হবে। দমনের প্রতিক্রিয়ায় প্রতিরোধের সারিতে বেশি বেশি মানুষও আসবে। আর তার ওপরই নির্ভর করবে সুন্দরবন ও বাংলাদেশের ভবিষ্যত। এ মুহূর্তে সুন্দরবন জাতীয় স্বার্থ ও মর্যাদার প্রাণভোমরা।

একে বাঁচানোর দায় সর্বজনের।



ফারুক ওয়াসিফ
জন্ম: ২২ সেপ্টেম্বর
সাংবাদিক, লেখক, কবি
বর্তমানে দৈনিক প্রথম